আত্মসাত করার কূ-মতলবে নড়াইলের ঐতিহ্যবাহী চিত্রা নদী দখল

নড়াইলের ঐতিহ্যবাহী চিত্রা নদী দখল করে বিশাল ভবন

খুলনা বিভাগ

নড়াইল প্রতিনিধি খন্দকার সাইফুলঃ : নড়াইলের ঐতিহ্যবাহী চিত্রা নদী দখল করে বিশাল ভবন ঢাকা ক্যাফে ও ঢাকা ফার্নিচারের মালিক তুষার শেখের বিরুদ্ধে এবার নড়াইলে জাল দলিল তৈরি করে ভাইয়ের ১৬ শতক জমি আত্মসাতের চেষ্টা এবং জোর পূর্বক দখল করার অভিযোগ এনে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, জেলার লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের ঈশানগাতি গ্রামের মোহাম্মদ তৌহিদুর রহমান নড়াইল পৌর এলাকার ৭৫নং দূর্গাপুর ডুমুরতলা মৌজায় (সাবেক দাগ নং ২৯৩৫, হাল দাগ ২৫৬৩ এবং সাবেক দাগ নং ২৯৪৩ হাল দাগ ২৫৮৪) পৃথক তারিখে ৪টি দলিলমূলে হিরন্ময়ী সিংহের কাছ থেকে ১৬ শতক জমি ক্রয় করেন।জমি ক্রয়ের পর তৌহিদুর রহমান নিজের নামে নাম পত্তনসহ ওই জমি ভোগদখল করে আসছেন।

জমি ক্রয় ও ভোগদখলের প্রায় ৮-৯ বছর পর ২০২০ সালের ৯মার্চ তৌহিদুর রহমানের আপন ভাই তুষার শেখ গোপনে জাল দলিলের মাধ্যমে হেবা ঘোষনাপত্র করে ওই ১৬শতক জমির মালিকানা দাবি করেন। অথচ তৌহিদুর রহমান হেবা ঘোষণাপূর্বক তার ভাই তুষার শেখকে জমি লিখে দেননি এবং হস্তান্তর করেননি বলে উল্লেখ করে এর প্রতিকার চেয়ে ২০২০ সালের ৫জুলাই নড়াইল যুগ্ন জেলা জজ ১ম আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলার বিবরণীতে তৌহিদুর রহমান উল্লেখ করেন ১নং বিবাদী তার ভাই তুষার শেখ একজন লোভী, ধুরন্ধর,জাল জালিয়াত ও কুচক্রী হইতেছে।

তার ভাইয়ের কাছে তপশীল জমির কাগজপত্র থাকার সুবাদে তিনি (ভাই তুষার শেখ) অন্যায় লোভের বশবর্তী হয়ে জমি আত্মসাত করার কূ-মতলবে অন্য লোককে দাতা সাজিয়ে হেবা ঘোষণাপত্র দলিল সৃষ্টি করেছেন।মামলার বাদি তৌহিদুর রহমান কখনো তপশীল জমি হেবা করার প্রস্তাব দেন নাই এবং স্বাক্ষীগণ ও সনাক্তকারীর সম্মূখে ১নং বিবাদী তার ভাই তুষার শেখের অনুকূলে মৌখিকভাবে হেবা করে জমির দখল অর্পণ করেননি।

সূত্রে আরো জানা গেছে, নড়াইল যুগ্ন জেলা জজ ১ম আদালতে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় তুষার শেখ গত ১৮ এপ্রিল সকাল ১০টার দিকে লোকজন নিয়ে জোর পূর্বক ভেকু দিয়ে ওই জমির মাটি কেটে আকার আকৃতির পরিবর্তন করে জমি দখলের চেষ্টা চালান।

Tagged

Leave a Reply