ঘুরে আসতে পারেন মৃধা বাড়ী ৩ তলা টিনের বাড়ী শামুর বাড়ী থেকে_khulna tv

ঘুরে আসতে পারেন মৃধা বাড়ী “৩ তলা টিনের শামুর বাড়ী” থেকে

Travel

ঘুরে আসতে পারেন মৃধা বাড়ী “৩ তলা টিনের শামুর বাড়ী” থেকে

বিভিন্ন সময়ে অনেকেই জিজ্ঞাসা করে থাকেন ঢাকার নিকটেই পরিবার পরিজন বা বন্ধু-বান্ধব নিয়ে ডে ট্যুর করার মত কোনো স্পট আছে কিনা। আপনারা অনায়াসেই ঘুরে আসতে পারেন মৃধা বাড়ী(৩ তলা টিনের বাড়ী), শামুর বাড়ী থেকে। নিমিষেই কাটিয়ে দিতে পারেন একটি দিন অথবা একটি সকাল বা বিকেল। যেখানে আপনারা পাবেন সবুজ গাছ- গাছালি, আর গ্রামের মেঠো পথের সাধ। তার সাথে পদ্মার বুকে একটি সূযাস্ত দেখার সুযোগ। আরও পাবেন শিমুলিয়া ঘাটে গরমা গরম ধোয়া উঠা ভাতের সাথে তরতাজা ইলিশ মাছ ভাজা দিয়ে একটি মারাত্মক রকমের লাঞ্চ অথবা ডিনার করার মওকা। আর সেই ইলিশ মাছটা চাইলে আপনি নিজের হাতেই ভেজে নিতে পারবেন। রয়েছে বালিগাও বাজারের বিখ্যাত মিষ্টি ও দই। এখানে ” তুফানি কুনডু ” নামের একটি মিষ্টির দোকান আছে, যার মিষ্টি গুলো চরম রকমের সুসাদু। আরও দেখা পাওয়া যাবে ” সাউথ টাউন ” জামে মসজিদ, যেটি কেরানিগঞ্জ নতুন জেলখানার নিকটেই অবস্থিত।

কিভাবে যাবেন :
পুরাতন ঢাকা গুলিস্তান বা নয়াবাজার থেকে অটো/ টেম্পু বা বাসে করে কেরানিগঞ্জ নতুন জেলখানা ( ভাড়া ১৫-২০টাকা) নেমে একটু হাটলেই “সাউথ টাউন ” জামে মসজিদ। এরপর সেখান থেকে মাওয়া বা বালিগাওগামী যে কোনো বাসে উঠে মালির অংক বাজার নামতে হবে( ভাড়া ৫০-৬০টাকা)। মালির অংক বাজার থেকে অটো বা রিক্সা নিয়ে “মৃধা বাড়ী”( ভাড়া ১৫-২০টাকা)। মৃধা বাড়ীটি ৩ তলা একটি টিনের বাড়ী,যা দেখতে খুবই সুন্দর। এই বাড়িতে যাওয়ার যে রাস্তা রয়েছে তা খুবই অসাধারণ। পুরো রাস্তাটি সবুজ খেত,ও গাছ- গাছালি তে ভরা। মৃধা বাড়ী দেখা শেষে রিক্সা নিয়ে(ভাড়া ১৫-২০টাকা) ” শামুর বাড়ি “। শামুর বাড়ীটি পদ্মার পাড় ঘেষে বানানো। এই বাড়িটির ব্যলকনি তে দাড়ালে পদ্মার বুকে জলরাশির খেলা চক্ষু ও মনের তৃপ্তি আনয়ন করে।শামুর বাড়িতে ছোট চিড়িয়াখানা টাইপ কিছু আছে।এখানে আপনার বিকেলটি কাটিয়ে অটো নিয়ে চলে যান শিমুলিয়া ঘাট (ভাড়া ৪০-৫০টাকা)। যেখানে রয়েছে অসংখ্য খাবারের দোকান। এখানের দোকান গুলোতে হরেক রকমের ভাজি-ভরতা,তরকারি ও ইলিশ মাছ সাজানো রয়েছে। (প্রতি পিছ ইলিশ মাছ ৮০টাকা)। আপনারা পছন্দমত মাছটি বাছাই করে আপনি হয়ে যান কিছু সময়ের জন্য বাবুর্চি আর ভেজে ফেলুন আপনার পছন্দ করা মাছটি এবং তৃপ্তি সহকারে খেয়ে ফেলুন যত খুশি। সাথে ” তুফানি কুনডুর ” দই মিষ্টি ও বরফি খেতে ভুলবেন না।

জনপ্রতি বাজেট – ৫০০-৬০০টাকা।

পরিবেশ পরিছন্ন রাখুন।যএতএ ময়লা ফেলবো না।এই সুন্দর দেশটিকে আরও সুন্দর করে রাখতে আসুন আমরা সকলেই সচেতন হই।

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *